RESIST FASCIST TERROR IN WB BY TMC-MAOIST-POLICE-MEDIA NEXUS

(CLICK ON CAPTION/LINK/POSTING BELOW TO ENLARGE & READ)

Saturday, May 23, 2015

MNREGA - সাধারণভাবে কর্মসংস্থান শ্লথ হয়ে গেছে। নির্বাচনী প্রচারে মোদী দাবি করেছিলেন, এক বছরে ২৫কোটি কর্মসংস্থান তৈরি করা হবে। অথচ গত এক বছরে লেবার ব্যুরোর হিসেব, ১লক্ষ ৭০ হাজার কাজ বেড়েছে। এই পরিমাণ গত কয়েক বছরের সঙ্গে তুলনায় নিম্নতম। ‘আচ্ছে দিন’-এর কোনো লক্ষণই নেই!

MNREGA - সামাজিক ক্ষেত্রে কেন্দ্রের বরাদ্দ হ্রাস এখন ঘোষিত সত্য। খাদ্য ভরতুকি বাদ দিলে মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদনের মাত্র ১.৬৮শতাংশ সামাজিক ক্ষেত্রে বরাদ্দ করা হয়েছে ২০১৫-১৬আর্থিক বর্ষের বাজেটে। তা গত বছরের থেকেও কম। ২০১০-১১-তেও তা ছিলো ২.৫শতাংশ, ২০১৩-১৪-তে প্রায় ২শতাংশ।

MNREGA - কৃষিক্ষেত্রের সঙ্কট তীব্র হয়েছে। ফসলের দাম তলানিতে ঠেকেছে। অর্থনীতিবিদের কেউ কেউ হিসেব করে দেখিয়েছেন, ফসলের গড় দাম কমে গেছে যদিও উৎপাদন খরচ কমেনি। একই সঙ্গে সহায়ক মূল্যের বৃদ্ধির হার গত এক বছরেই সবচেয়ে কম। সরকারি প্রক্রিয়ায় শস্য সংগ্রহও দারুণভাবে কমে গেছে। ফসলহানির ঘটনায় উত্তর, পশ্চিম ভারত ধুঁকছে।

NARENDRA MODI - রেগা প্রকল্প ছাঁটাই করার কর্মসূচি নিয়ে মোদী সরকার চলছে। গ্রামীণ কর্মসংস্থানের এই প্রকল্প মোট কাজের দিন দারুণভাবেই কমে এসেছে। ২০১০-১১-তে মোট কর্মদিবস তৈরি হয়েছিল ২৫০কোটির কিছু বেশি। মোদী সরকার ক্ষমতায় বসার আগেও তা ছিলো ২২০কোটির বেশি। মোদী সরকার বসার পরে ২০১৪-১৫-তে তা দাঁড়িয়েছে ১৪৮কোটি ৯০লক্ষে। এর প্রত্যক্ষ ফলাফল হলো গ্রামে কাজ কমেছে, গ্রামের গরিবের আয় কমেছে।

NARENDRA MODI - ভারতীয় মুদ্রার বিনিময়মূল্য নিয়ে এক সময়ে ইউ পি এ সরকারকে কটাক্ষ করলেও আবার তা দ্রুত অবনমনের পথে। শুক্রবার তা ছিলো এক মার্কিন ডলারপিছু ৬৩.৪৮টাকা। কংগ্রেসের মুখপাত্র শেহজাদ পুনাওয়ালা মন্তব্য করেছেন, ‘ভারতীয় টাকার দাম এবার অর্থমন্ত্রীর বয়স ছাড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর বয়সের দিকে চলেছে’।

NARENDRA MODI - বাস্তবে মৌল ক্ষেত্রগুলিতে উৎপাদন কমে গেছে। কয়লা, বিদ্যুৎ, অশোধিত তেল, প্রাকৃতিক গ্যাস, ইস্পাত, সিমেন্ট, সার উৎপাদন শেষ ত্রৈমাসিকে ০.১ শতাংশ কমে গেছে। গত ১৭মাসে এই হার নিম্নতম। বিদেশী বিনিয়োগের জন্য এবং তথাকথিত বাজারকে চাঙ্গা করার জন্য সরকারের যাবতীয় উদ্যোগ সত্ত্বেও বিদেশি অর্থলগ্নি কমে যাচ্ছে। মে মাসেই বিদেশি অর্থলগ্নি সংস্থা ভারত থেকে ৫৫কোটি ডলার পুঁজি সরিয়ে নিয়েছে। ২০১৩-র আগস্টের পরে সর্বাধিক।

NARENDRA MODI - মোদী সরকার দাবি করছে দেশের অভ্যন্তরীণ উৎপাদন বৃদ্ধির হার অনেক বেড়েছে। প্রকৃতপক্ষে ভিত্তিবর্ষ এবং সূচক পরিবর্তন করে এই সুখী চিত্র দেখানো হচ্ছে। পুরনো ভিত্তি অনুযায়ী গণনা করা হলে ২০১৫-তে জি ডি পি বৃদ্ধির হার হবে ৬.২শতাংশ। নতুন হিসেবে তাকেই দেখানো হচ্ছে ৭.২শতাংশ। অথচ অর্থনীতির কোনো ক্ষেত্র থেকেই এই হারের সমর্থন মিলছে না। এমনকি রিজার্ভ ব্যাঙ্কও সংশয় প্রকাশ করেছে।

NARENDRA MODI - অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার স্লোগানে ক্ষমতায় এলেও এক বছরের মাথায় অর্থনীতির মৌলিক সূচকগুলিতেই পিছিয়ে যাচ্ছে মোদী সরকার। এমনকি যে বেসরকারি বিনিয়োগের ওপরে ভরসা করে মোদী অর্থনীতির ‘হাল ফেরানোর’ প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, তার পরিস্থিতিও মোটেই সুখকর নয়। ছোট-মাঝারি তো বটেই এমনকি বড় প্রকল্পেও বেসরকারি বিনিয়োগের হার খুব কম।